ADVERTISEMENT

আবারও WhatsApp Pink কেলেঙ্কারি! ক্লিক করলেই হ্যাকারদের হাতে গোপন তথ্য

হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ফরওয়ার্ড মেসেজে হোয়াটসঅ্যাপ এর নামে ভুয়ো অ্যাপ। কীভাবে সতর্ক হবেন?

ADVERTISEMENT

WhatsApp Pink: চেনা সংস্থার নামে ভুয়ো অ্যাপ বানিয়ে লোক ঠকানোর ঘটনা ক্রমশ বেড়ে চলেছে দেশজুড়ে। নিরীহ ব্যক্তিদের টার্গেট করছে একদল প্রতারকরা। সম্প্রতি, ইন্টারনেটে WhatsApp Pink নামক অ্যাপটি বেশ ভাইরাল হয়েছে, যা অরিজিনাল হোয়াটসঅ্যাপ এর একটি ক্লোন বা ফেক ভার্সন বলা যেতে পারে। মেটা মালিকানাধীন অ্যাপটি দেশের অন্যতম জনপ্রিয় অ্যাপ হওয়ার কারণে লক্ষ লক্ষ সক্রিয় ব্যবহারকারী রয়েছে। যাইহোক, এই জনপ্রিয়তা স্ক্যামারদের জন্য তাদের জালিয়াতি ছড়িয়ে দেওয়া একটি সহজ লক্ষ্য করে তোলে।

ADVERTISEMENT

WhatsApp Pink কি ?

হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক নামের একটি ভুয়ো অ্যাপের বিরুদ্ধে ব্যবহারকারীদের সতর্ক করেছে প্রশাসন। কারণ এই অ্যাপ হল আসলে একটি ভাইরাস। সম্প্রতি এক প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে যে, বেশ কিছু দিন ধরে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ গুলিতে একটি মেসেজ ফরওয়ার্ড করা হচ্ছে। যেখানে ‘WhatsApp Pink’ নামক একটি অ্যাপের ডাউনলোড করার লিঙ্ক রয়েছে। ব্যবহারকারীদের অনেকেই মেসেজিং অ্যাপের গোলাপি রঙের ভার্সান পাওয়ার আশায় লিঙ্ক পেতেই তা ডাউনলোড করে নিয়েছিলেন।

কিন্তু প্রশাসন জানিয়েছে, এই ধরণের অ্যাপ সম্পূর্ণ ভুয়ো। অ্যাপটি ডাউনলোড করার ফলে ইউজাররা তাদের মোবাইলের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলতে পারে বা তাদের মোবাইল হ্যাক হয়ে যেতে পারে এবং তাদের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিগত তথ্য প্রতারকরা অ্যাক্সেস করতে পারে।

WhatsApp Pink-এর মতো ভুয়ো অ্যাপ গুলির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বেশ কয়েকটি ব্যবস্থা নিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। সংস্থাটি স্প্যামিং বা প্রতারণামূলক কার্যকলাপে জড়িত সন্দেহজনক অ্যাকাউন্টগুলি সনাক্ত করতে উন্নত মানের অ্যালগরিদম ব্যাবহার করছে। উক্ত অ্যাকাউন্ট গুলি সনাক্ত হবার পর ব্লক করে দেওয়া হচ্ছে।

আপনি যদি ইতিমধ্যেই WhatsApp Pink ডাউনলোড করে থাকেন তবে কী করবেন

আপানার মোবাইলে যদি ভুলবশত এই অ্যাপ ডাউনলোড করা থাকে, তাহলে তৎক্ষণাৎ এই আপ আনইন্সটল করুন। যেহেতু এটি একটি থার্ড পার্টি অ্যাপ তাই এটি ব্যবহার করা কখনও নিরাপদ নয়। এর আগে ২০২১ সালের এই হোয়াটসঅ্যাপ পিঙ্ক স্ক্যামের বিষয়ে শোনা গিয়েছিলো। এই অ্যাপ ক্ষতিকারক এবং মোবাইল ডিভাইজকে সংক্রমিত করতে পারে।

মনে রাখবেন, শুধুমাত্র গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপেল স্টোর ছাড়া কোনও থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন না। এছারা আপনার ব্যক্তিগত বিবরণ,পাসওয়ার্ড, ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের বিশদ বিবরণ এবং অনুরূপ তথ্য অনলাইনে কারও সাথে শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন, কারণ এগুলির অপব্যবহার হতে পারে।

আরো পড়ুন