ADVERTISEMENT

দুর্দান্ত সাউন্ডে লঞ্চ হল দুটি JBL Earbuds , একবার চার্জে চলবে ২দিন

সাউন্ডের রাজা JBL ভারতের বাজারে লঞ্চ করল তাদের দুটি অত্যাধুনিক ইয়ারবাড

ADVERTISEMENT

JBL Earbuds :  বিশ্ব সঙ্গীত দিবসে JBL ভারতে দুটি ট্রূলি ওয়্যারলেস ইয়ারবাড লঞ্চ করেছে। দুটি নতুন TWS ইয়ারবাডের নাম রাখা হয়েছে যথাক্রমে JBL Tune Buds এবং Tune Beam। এই ইয়ারবাড দুটিই হচ্ছে  JBL Tune সিরিজের অন্তর্ভুক্ত। সংস্থাটি এই মাসের শুরু থেকেই এই দুটি নতুন ইয়ারবাডের লঞ্চের কথা নেট দুনিয়ায় ছড়িয়েছিল এবং অবশেষে সেগুলিকে ভারতের বাজারে লঞ্চ করে দিয়েছে।

ADVERTISEMENT

দুটি ইয়ারবাডেই কিছু জিনিস বাদ দিয়ে অনেকটাই একই ফিচার্স রয়েছে যা সাশ্রয়ী মূল্যে ডীপ ব্যাস সহ হাই-এন্ড অডিও প্রদান করে। আসুন এই দুটি JBL Earbuds-এর স্পেসিফিকেশন এবং ফিচার্সগুলি একবার দেখে নেওয়া যাক।

JBL Earbuds : JBL Tune Beam এবং JBL Tune Buds এর ফিচার্স ও স্পেসিফিকেশন

JBL Tune Buds এবং Tune Beam TWS ইয়ারবাডগুলির ডিজাইনের ক্ষেত্রে অনেক পার্থক্য রয়েছে। JBL Tune Buds TWS দেখতে একটি ফুলের কুঁড়ির মতো যা চার্জিং কেসে আসে, কিন্তু এতে কোনরকম ডাঁট (Stem) নেই। অন্যদিকে, JBL Tune Beam-এ একটি ক্লোজড-স্টিক ডিজাইন রয়েছে এবং একটি ডাঁটও (Stem) রয়েছে।

Tune Buds-এ ১০ এমএম অডিও ড্রাইভার আছে, সেখানে Tune Beam ৬ এমএম অডিও ড্রাইভারের সাথে আসে। উভয়ই কোম্পানির সিগনেচার অডিও টিউনিং JBL পিওর ব্যাস সাউন্ড প্রদান করতে সক্ষম। উভয় বাডস্‌গুলিই  ৫.৩ LE সাপোর্টেড ব্লুটুথ সংযোগ সহ আসে যা ব্যাটারি বাঁচাতে সক্ষম।

উভয় ইয়ারবাডেই স্মার্ট অ্যাম্বিয়েন্ট ফিচার সহ অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যান্সেলেশন (ANC) ফিচার্স রয়েছে, যা অডিও শোনার সময়ও শ্রোতাকে আশেপাশের পরিবেশ সম্বন্ধে সচেতন রাখে। এছাড়াও টকথ্রু (TalkThru) নামে একটি ফিচার্স রয়েছে যা ইয়ারবাডগুলি কানের মধ্যে থাকা সত্তেও আপনি একে অপরের সাথে কথোপকথন করতে পারেন।

JBL Earbuds গুলি ধুলো এবং জল প্রতিরোধের জন্য IP54 রেটযুক্ত। উল্লেখ্য, এই ইয়ারবাডগুলিকে JBL Headphone Companion অ্যাপের মাধ্যমে বিভিন্ন ফিচার্স কাস্টমাইজ করা সক্ষম। অ্যাপটি টাচ কন্ট্রোল জেসচার রিম্যাপ করতে, অডিও প্রোফাইল সেট করতে এবং আশেপাশের শব্দ নিয়ন্ত্রণ করতে সুবিধা করে।

JBL শুধুমাত্র ইয়ারবাডে ১২ ঘন্টা ব্যাটারি লাইফ দাবি করে এবং চার্জিং কেস অতিরিক্ত ৩৬ ঘন্টা ব্যাটারি লাইফ প্রদান করতে পারে। যাইহোক, সক্রিয় নয়েজ ক্যান্সেলেশন চালু থাকলে ব্যাটারি লাইফ যথাক্রমে ১০ ঘন্টা এবং ৩০ ঘন্টায় নেমে আসে। এছাড়া, JBL Tune Buds স্পিড চার্জ সমর্থন করে, যা মাত্র ১৫ মিনিট চার্জের সাথে ৪ ঘন্টা ব্যাটারি লাইফ দেয়।

JBL Earbuds গুলির দাম ও উপলব্ধতা

JBL Tune Buds এবং Tune Beam যথাক্রমে ৫,৪৯৯ টাকা এবং ৬,৪৯৯ টাকায় বিশেষ লঞ্চিং মূল্যে পাওয়া যাচ্ছে। উভয়ই কালো, নীল এবং সাদা রঙে উপলব্ধ। এগুলি এখন amazon এবং JBL-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ক্রেতাদের জন্য সহজলভ্য। ওগুলি ছাড়াও আর অন্যান্য হেডফোন সংক্রান্ত বিষয়ে আপডেটেড থাকতে “এখানে ক্লিক করুন

আরো পড়ুন